eng
competition

Text Practice Mode

চতুর্থ শিল্পবিপ্লব

created Nov 22nd 2022, 05:40 by Arafat Sk


0


Rating

383 words
6 completed
00:00
চতুর্থ শিল্পবিপ্লব
তথ্যপ্রযুক্তিসহ সকল প্রযুক্তি নানা মাধ্যমে আমাদের পৃথিবীর  আর্থসামাজিক মানচিত্রকে গত তিন চার দশকে আমূল পাল্টে দিয়েছে। বিজ্ঞানের নানা অভূতপূর্ব আবিষ্কার উন্নয়নের কারণে মানুষ দিন দিন বেশি সক্ষমতা অর্জন করেছে। বর্তমান প্রযুক্তির অভাকিত উদ্ভাবন সমাজের ব্যাপক আর্থিক সক্ষমতা বৃুদ্খ করেছে। বাংলাদেশ পরিবর্তিত বিশ্বব্যবস্থা থেকে বিচ্ছিন্ন নয়। আমাদের দেশেও আর্থসামাজিক অবস্থার দ্রুত পরিবর্তন ঘটছে। আমাদের দেশে এখন সপ্তাহের প্রতিদিনই বাজার বসে। মহাসড়কের দুই পাশে দোকান বেড়েই চলছে। ব্যবসাবাণিজ্যের প্রসার ঘটছে। গ্রামের রাস্তায় এখন অঅর গরুর গাড়ি দেখা যায় না, এমন কী প্যাডেল রিকশা ভ্যানের জায়গা দখল করে নিয়েছে ব্যাটারি চালিত ইজিবাইক। গ্রামে অনেক পরিবারেই আছে ফ্রিজ, টিভি। মোবাইল ছাড়া পরিবার এখন খুঁজে পাওয়া দায়। আর সবই হয়েছে আমাদের চোখের সামনে গত দুই দশকেরও কম সময়ের মধ্যে। নতুন নতুন প্রযুক্তি আমাদের জীবন ব্যাবস্থাকে পাল্টে দিচ্ছে। আমরা, আমাদের অজান্তেই পুরাতন ব্যবস্থার পরিবের্তে নতুন ব্যবস্থায় অভ্যস্ত হয়ে পড়ছি। সব প্রযুক্তি আমাদের নিয়ে যাচ্ছে এক নতুন সমাজ ব্যবস্থায় যা আমরা কখনো কল্পনাও করিনি।
চতুর্থ শিল্পবিপ্লব আমাদের দোরগোড়ায় কড়া নাড়ছে। বলা হচ্ছে শিল্পবিপ্লবের প্রভাবে আমাদের সমাজ ব্যবস্থার আমূল পরিবর্তন হবে। এর প্রভাব ইতোমধ্যেই সীমিত আকারে হলেও পড়তে শুরু করেছে। সময়ের পরিক্রমায় িএটি আরও বেশি দৃশ্যমান হবে। প্রথম দ্বিতীয় শিল্পবিপ্লব আমরা মিস করেছি। ১৭৮৪ সালে প্রথম শিল্পবিপ্লবের মাধ্যমে বাষ্পীয় িইঞ্জিন মানুষের হাতে তুলে দিয়েছিলো গতিকে। মূলত পানি আর বাষ্পের ব্যবহার করে উৎপাদন বৃদ্ধি হয় শিল্পের মাধ্যমে। এরপর ১৮৭০ সালে দ্বিতীয় শিল্পবিপ্লবের মাধ্যমে বৈদ্যুতিক বাতি মানুষকে দেয় এক আলোকিত বিশ্ব। আর বিদ্যুৎ শক্তি ব্যবহার করে গণ-উৎপাদন শুরু হয়। দ্বিতীয় শিল্পবিপ্লবের আর্শীবাদ বিদ্যুৎকে আমরা মানুষের ঘরে পৌঁছে দিলাম ২০২১ সালে। বিদ্যুৎ নির্ভর শিল্পবিপ্লবকে আমরা ধরতে ব্যর্থ হলাম। তৃতীয় শিল্পবিপ্লবের শুরু হয় ১৯৬৯ সালে তৃতীয় শিল্পবিপ্লবের নেতৃত্ব দিয়েছে আমেরিকা। ইন্টারনট বিশ্বকে গ্লোবাল ভিলেজে বূপান্তরিত কলো। কম্পিউটারের ব্যবহার শুরু হয়ে গেলো। ১৯৬৪ সালে আমাদের ভুখন্ডে প্রথম কম্পিউটার এলো। তৃতীয় শিল্পবিপ্লবকেও আমরা যথাসময়ে ধরতে পারিনি। দেশ স্বাধীনের পর বঙ্গবন্ধু সরকার উত্তরাধিকার সূত্রে পাওয়া শিক্ষাব্যবস্থাকে যুগোপযোগী কারা লক্ষ্যে কুদরত খোদা কমিশন গঠন করেন। কুদরত খোদা কমিশন রিপোর্টের ভিত্থিতে শিক্ষঅব্যবস্থাকে ঢেলে সাজানোর পাশাপাশি কারিগরি শিক্ষাকে গুরুত্ব দেওয়া হয়। বঙ্গবন্ধু সরকারের আমলে টি এন্ড টি বোর্ড গঠন করা হয়। বেতবুনিয়ায় ভূউপগ্রহ কেন্দ্র স্থাপন করা হয়। বঙ্গবন্ধু সরকার কিছু কনসেপ্ট নেয়ে কাজ করেছিলেন। ৩য় শিল্পবিপ্লবকে মোকাবিলার জন্য সদ্য স্বাধীন দেশের অবকাঠামো উন্নয়ন এবয় স্বল্প, মধ্যে দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা করার জন্য বিভিন্ন কমিটি গঠন করে, সব কমিটিকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছিলো। বঙ্গবন্ধু সরকারের পর এসব বিষয়ে উল্লেখযোগ্য কোনো কাজ হয়নি।

saving score / loading statistics ...